প্রয়োজনীয় উপকরণঃ

১। চিংড়ী মাঝারী সাইজের -(১০-১৫ টি)
২। বড় সাইজের পিয়াজ (২-৩ টা)
৩। ক্যাপসিকাম লাল ও সবুজ ১ টা
৪। টোমেটো- ১ কাপ
৫। লেবুর রস- ১ চা চামচ
৬। গোল মরিচের গুড়া ১/২ চা চামচ
৭। লাল মরিচের গুড়া ১/২ চা চামচ
৮। রসুন বাটা-১/২ চা চামচ
৯। আদা বাটা - ১/২ চা চামচ
১০। সরিষা বাটা- ১/২ চা চামচ
১১। টমেটো সস + চিলি সস + বারবিকিউ সস-১ টেবিল চামচ
১২। সয়াসস – ১/৪ চা চামচ
১৩। চিনি- ১/৪ চা চামচ
১৪। লবন(পরিমান মত)
১৫। সাসলিক কাঠি
১৬। সয়াবিন তেল (পরিমাণ মতো)

প্রস্তুত প্রণালীঃ

প্রথমে একটি প্রয়োজনীয় টিপস দিয়ে শুরু করি , যেহেতু আমরা চিংড়ীর সাসলিক বানাবো সেহেতু সাসলিক কাঠি গুলো ব্যাবহারের পূর্বে অন্তত ৩০ মিনিট ঠাণ্ডা পানিতে ভিজিয়ে রাখুন এতে করে কাঠি গুলো পুড়ে কালচে হয়ে যাবে না। এ পর্যায়ে পিয়াজ ও ক্যাপসিকাম ও টোমেটো গুলো কিউব করে কেটে নিতে হবে । চিংড়ীতে লেবুর রস, গোল মরিচের গুড়া ,লাল মরিচের গুড়া ,রসুন বাটা, আদা বাটা, সরিষা বাটা, টমেটো সস, চিলি সস, বারবিকিউ সস, সয়াসস, চিনি ও পরিমান মত লবন দিয়ে ভালোমতো মেখে ১৫-২০ মিনিট রাখতে হবে ।যেহেতু এটি স্পাইসি চিংড়ী-সাসলিক সেহেতু মরিচের পরিমাণ একটু বেশী দিতে হয় । চাইলে মরিচ কম ব্যাবহার করতে পারেন। এবার সাসলিক কাঠিতে একে একে কিউব করা, পিয়াজ, ক্যাপসিকাম, টমেটো ও এক পিছ করে মাখিয়ে রাখা চিংড়ী দিয়ে সারিবদ্ধ ভাবে কাঠির শেষ মাথা পর্যন্ত গেঁথে নিতে হবে। এভাবে প্রতিটি কাঠি একইভাবে গেঁথে নিতে হবে। এবার একটি ননস্টিক পাত্রে অল্প তেল দিয়ে সাসলিকগুলো দিয়ে অল্প আঁচে উভয় পাশে ৫-৮ মিনিট ভাজতে হবে । এভাবে ১০-১৫ মিনিটের মধ্যে গাঁ পোড়া পোড়া হয়ে গেলে নামিয়ে নিন। গরম গরম পুদিনা পাতার সসের সাথে নানরুটি, পরোটা অথবা এমনিতেই পরিবেশন করুন এই মজাদার খাবারটি ।